Monday, June 17বাংলারবার্তা২১-banglarbarta21
Shadow

নরসিংদীর শেখেরচর-বাবুরহাটের জিয়াউদ্দিন মার্কেটে ভয়াবহ আগুন পুড়ে গেছে প্রায় ৩২ দোকান

বাংলদেশের অন্যতম বৃহৎ পাইকারি ও বৃহত্তর কাপড়ের হাট প্রাচ্যের ম্যানচেস্টারখ্যাত নরসিংদীর শেখেরচর-বাবুরহাটের জিয়াউদ্দিন মার্কেটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে মার্কেটের ৩২টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এখানকার প্রায় সব দোকানে থ্রিপিস, বিছানার চাদর ও তোশকের কাপড় ছিল। এতে প্রায় ১০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতির শঙ্কা করছেন ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীরা। আগুন লাগার সাথে সাথে দোকানে থাকা কর্মচারীরা আগুন আগুন করে চিৎকার করতে থাকে। তবে আগুনে এই ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি।

শনিবার (১৬/১৩/২০২৪) দিবাগত রাত ১টা ১০ মিনিটে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে ফায়ার সার্ভিস। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের নরসিংদীর বিভিন্ন স্থান থেকে আসা আটটি ইউনিট প্রায় ১ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে রাত আড়াইটার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

নরসিংদীর বাবুর হাটে গত বছরের ২৯ অক্টোবর দিবাগত রাত ১১টার দিকে হাটের বণিক সমিতির পুরাতন অফিস সংলগ্ন গলিতে ভয়াভয় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ঐ ঘটনায় ৭০টি দোকানের প্রায় ১০০ কোটি টাকার কাপড় পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছিল।

শেখেরচর-বাবুরহাটের ব্যবসায়ী বণিক সমিতির নেতারা ও ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা গেছে, দেশের বৃহৎ পাইকারি ও বৃহত্তর কাপড়ের হাট প্রাচ্যের ম্যানচেস্টারখ্যাত নরসিংদীর শেখেরচর-বাবুরহ প্রতি শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক হাটবার। এখানে বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে পাইকারী কাপড় সহ বিভিন্ন কাপড় কিনতে আসেন ক্রেতারা। ক্রেতাদের সমাগম বেশী হওয়ায় বৃহস্পতিবার ও রবিবার অর্ধবেলা পাইকারি এই হাটে বেচাকেনা চলে। ছোট-বড় প্রায় পাঁচ হাজার দোকান রয়েছে এই হাটে।

এবার ২০২৪ সালের রমজানের ঈদকে সামনে রেখে প্রায় প্রত্যেক দোকানেই প্রচুর কাপড় তুলেছেন ব্যবসায়ীরা। শবিবার দিবাগত রাত ১টা ১০ মিনিটের দিকে হঠাৎ জিয়া মার্কেটের গলিতে আগুনের ধোঁয়া দেখতে পান স্থানীয়রা।

চিৎকার চেচামেচিতে মুহূর্তের মধ্যে আগুন ছড়িয়ে পড়ে ওই মার্কেটের ৩২টি দোকানে। ভয়াবহ আগুনের ধোঁয়া ও লেলিহান শিখায় ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে দোকান মালিকরা লোকজন নিয়ে মালামাল সরানোর চেষ্টা ও আগুন নেভানোর কাজে নামেন। রাত বেশী হওয়ায় অনেকে কাপড় ও ক্যাশে থাকা টাকা সরাতে পারেননি বলে জানিয়েছেন অনেকে। তবে অনেক ব্যবসায়ী আগুনের ভয়াবহতা দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন।

কাপড় মার্কেটে আগুন লাগার খবর পেয়ে মাধবদী ফায়ার সার্ভিসের ২টি, নরসিংদী ফায়ার সার্ভিসের ২টি, পলাশ ফায়ার সার্ভিসের ২টি ও নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের একটি ইউনিটসহ মোট ৭টি ইউনিট প্রায় ১ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে থ্রিপিস, বিছানার চাদর ও তোশকের কাপড়ের ৩২টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে বলে দাবি করেন ব্যবসায়ীরা।

এদিকে নরসিংদী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপসহকারী পরিচালক শিমুল মো. রফি বলেন, খবর পেয়ে আমাদের মোট ৭ ইউনিট প্রায় ১ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এতে প্রায় ৩২টি দোকানের কাপড় পুড়ে চাই হয়ে গেছে। বৈদ্যুতিক শর্ট সাকিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তাৎক্ষণিক ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১০০ কোটি টাকার বেশী বলে ধারনা করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *