history extended essay writing a report for school writing my admission essay experience copy of phd thesis
Saturday, September 25বাংলারবার্তা২১-banglarbarta21
Shadow

সরকারী কোয়াটারে না থাকলে ভাতা বাতিলের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

বার্তা প্রতিনিধি: যারা সরকারী চাকুরী করে তাদেরকে বিধি মোতাবেক সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা তাদের জন্য সরকার থেকে বরাদ্দকৃত বাসা বরাদ্ধ দেওয়া হয়। কিন্তু অনেক সরকারী কর্মকর্তা আছেন যারা সরকারীভাবে বরাদ্ধকৃত বাসায় বসবাস না করে সাধারন পাবলিককে ভাড়া দেন। এমতাবস্থায় বরাদ্ধকৃত বাসায় বসবাস না করলে বাড়ি ভাড়া বাবদ যে ভাতা দেয়া হয়, তা বাতিল করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গত মঙ্গলবার (২২ ডিসেম্বর) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে অর্থ মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা তুলে ধরে পরিকল্পনা বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. আসাদুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, সরকারি বেতন বৃদ্ধির ফলে এখন যে হাউজ রেন্ট (বাড়ি ভাড়া) পাওয়া যায়, সেটার চেয়ে কম পয়সায় বাইরে বাসা ভাড়া পাওয়া যায়। এজন্য বাসাগুলো তৈরি থাকে, অব্যবহৃত থাকে এবং নষ্ট হয়। ফলে একটা নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন যে, যাদের নামে বাসা বরাদ্দ হবে তাদেরকে থাকতেই হবে। যদি না থাকেন তাহলে তারা বাড়ি ভাড়া বাবদ ভাতা পাবেন না। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

২২শে ডিসেম্বর উক্ত জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় তিন হাজার ৩০৮ কোটি ৩৬ লাখ টাকা ব্যয়ে পাঁচটি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে সরকার দেবে এক হাজার ২৪৫ কোটি ৩০ লাখ, সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন ২০ কোটি ৯৮ লাখ ও বিদেশি ঋণ দুই হাজার ৪২ কোটি আট লাখ টাকা।

এদিন জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির অনুমোদিত প্রকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে- শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ‘রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকতর উন্নয়ন (১ম সংশোধিত)’ প্রকল্প; স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের তিনটি প্রকল্প যথাক্রমে ‘নরসিংদী জেলার পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন’ প্রকল্প; ‘খুলনা শহরে পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা নির্মাণের জন্য ভূমি অধিগ্রহণ (১ম সংশোধিত)’ প্রকল্প ও ‘মানবসম্পদ উন্নয়নে গ্রামীণ পানি সরবরাহ, স্যানিটেশন এবং স্বাস্থ্যবিধি’ প্রকল্প এবং বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ‘প্রিপেইড গ্যাসমিটার স্থাপন (২য় সংশোধিত)’ প্রকল্প।

অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির সভায় উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাক, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী এবং শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী। তবে সরকারী কর্মকর্তাদের বাসার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে এখনো কোন নির্দেষনা প্রদান করে কোন চিঠি ইস্যু হয়নি। তবে প্রধানমন্ত্রীর নির্দষনাকে গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন দপ্তরগুলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.