cyber crime essay admission essay editing service nz phd dissertation for sale online essay writer uk david sedaris essays full text
Monday, June 14বাংলারবার্তা২১-banglarbarta21
Shadow

পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী প্রার্থী ঘোষনা, ৬১ পৌরসভায় শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চান প্রধানমন্ত্রী

বার্তা প্রতিনিধি: বাংলাদেশে অভ্যন্তরিন আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনসহ সাংগঠনিক সবক্ষেত্রে দলীয় শৃঙ্খলা রক্ষার তাগিদ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, পৌরসভাসহ সব নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে কাজ করতে হবে। দল থেকে যাকেই প্রার্থী করা হবে, নেতাকর্মীদের তার পক্ষেই ঐক্যবদ্ধভাবে মাঠে থাকতে হবে। দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করা যাবে না।

গত শুক্রবার তার সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। আওয়ামী লীগ সভাপতির সভাপতিত্বে এ বৈঠকে দেশের ৬১টি পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় মেয়র প্রার্থীদের মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হয়। আগামী ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় দ্বিতীয় ধাপের এসব পৌরসভা নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন তারা।

মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর নামে ইউনেস্কো প্রবর্তিত আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এটি বাংলাদেশের জন্য অনন্য সাধারণ গৌরব বয়ে এনেছে। বাঙালি জাতির জন্যও এটা বিরল সম্মান।

উক্ত বৈঠকে মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দলের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, কাজী জাফর উল্লাহ, লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুর রহমান এবং প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ।

মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠকে শেষে রাতে আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ূয়া স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দলীয় মেয়র প্রার্থীদের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয়।

২০২০ সালে পৌরসভা নির্বাচনে যারা মনোনয়ন পেলেন:

অভ্যন্তরিন ৬১ পৌরসভার মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন দিনাজপুর জেলার দিনাজপুর পৌরসভায় রাশেদ পারভেজ, বিরামপুরে আক্কাস আলী ও বীরগঞ্জে নূর ইসলাম, নীলফামারীর সৈয়দপুরে রাফিকা আকতার জাহান, কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে ফরহাদ হোসেন ধলু, গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে আবদুল্লাহ আল মামুন ও গাইবান্ধা পৌরসভায় শাহ মাসুদ জাহাঙ্গীর কবীর, বগুড়ার শেরপুরে আবদুস সাত্তার, সারিয়াকান্দিতে আলমগীর শাহী, সান্তাহারে আশরাফুল ইসলাম (মন্টু), নওগাঁর নজিপুরে রেজাউল কবির চৌধুরী, রাজশাহীর কাকনহাটে একেএম আতাউর রহমান খান, ভবানীগঞ্জে আ. মালেক ও আড়ানীতে শহীদুজ্জামান, নাটোরের নলডাঙ্গায় মনিরুজ্জামান মনির, গোপালপুরে কাজী আসিয়া জয়নুল ও গুরুদাসপুরে শাহনেওয়াজ আলী, সিরাজগঞ্জ জেলার সিরাজগঞ্জ পৌরসভায় সৈয়দ আবদুর রউফ মুক্তা, উল্লাপাড়ায় এসএম নজরুল ইসলাম, বেলকুচিতে আশানুর বিশ্বাস, রায়গঞ্জে আবদুল্লাহ আল পাঠান ও কাজীপুরে আবদুল হান্নান তালুকদার, পাবনার ঈশ্বরদীতে ইছহাক আলি মালিথা, ফরিদপুরে খন্দকার মো. কামরুজ্জামান (মাজেদ), সাঁথিয়ায় মাহবুবুল আলম, ভাঙ্গুড়ায় গোলাম হাসনাইন ও সুজানগরে রেজাউল করিম, মেহেরপুরের গাংনীতে আহম্মেদ আলী, কুষ্টিয়া জেলার কুষ্টিয়া পৌরসভায় আনোয়ার আলী, কুমারখালীতে সামছুজ্জামান অরুন, ভেড়ামারায় শামিমুল ইসলাম ছানা ও মিরপুরে মোহা. এনামুল হক, ঝিনাইদহের শৈলকূপায় কাজী আশরাফুল আজম, বাগেরহাটের মোংলাপোর্টে শেখ আব্দুর রহমান, মাগুরা জেলার মাগুরা পৌরসভায় খুরশীদ হায়দার টুটুল, পিরোজপুর জেলার পিরোজপুর পৌরসভায় হাবিবুর রহমান মালেক, টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে খন্দকার মনজুরুল ইসলাম (তপন), কিশোরগঞ্জ জেলার কিশোরগঞ্জ পৌরসভায় পারভেজ মিয়া ও কুলিয়ারচরে সৈয়দ হাসান সারওয়ার মহসিন, ঢাকার সাভারে হাজি আবদুল গনি, নরসিংদীর মনোহরদীতে মোহাম্মদ আমিনুর রশিদ, নারায়ণগঞ্জের তারাবতে হাছিনা গাজী, ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে সেলিম রেজা, শরীয়তপুর জেলার শরীয়তপুর পৌরসভায় পারভেজ রহমান, ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় বিল্লাল হোসেন সরকার ও ফুলবাড়িয়ায় গোলাম কিবরিয়া, নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে লতিফুর রহমান রতন ও কেন্দুয়ায় আসাদুল হক ভূঞা

সুনামগঞ্জ জেলার সুনামগঞ্জ পৌরসভায় নাদের বখত, ছাতকে আবুল কালাম চৌধুরী ও জগন্নাথপুরে মিজানুর রশীদ ভূঁইয়া, মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে জুয়েল আহমেদ ও কুলাউড়ায় সিপার উদ্দিন আহমদ, হবিগঞ্জের মাধবপুরে শ্রীধাম দাশ গুপ্ত ও নবীগঞ্জে গোলাম রসুল রাহেল চৌধুরী, কুমিল্লার চান্দিনায় শওকত হোসেন ভূঁইয়া, ফেনীর দাগনভূঞায় ওমর ফারুক খান, নোয়াখালীর বসুরহাটে আবদুল কাদের, চট্টগ্রামের সন্দ্বীপে মোক্তাদের মাওলা সেলিম, খাগড়াছড়ি জেলার খাগড়াছড়ি পৌরসভায় নির্মলেন্দু চৌধুরী এবং বান্দরবানের লামা পৌরসভায় জহিরুল ইসলাম।

এইবার তৃতীয় ধাপের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের ফরম সংগ্রহ কাল (শনিবার) থেকে:

আগামীকাল শনিবার তৃতীয় ধাপে আগামী ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় ৬৪টি পৌরসভা নির্বাচনের মেয়র পদে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের আহ্বান জানিয়েছে আওয়ামী লীগ। রোববার থেকে আগামী ২৪ ডিসেম্বর প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে দলীয় মনোনয়নের আবেদনপত্র সংগ্রহ ও জমা দিতে হবে।

গত শুক্রবার দলের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ূয়া স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে পৌরসভা নির্বাচনের এই তথ্য জানানো হয়েছে। এতে আরও বলা হয়, সংশ্নিষ্ট জেলা, উপজেলা ও পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত রেজুলেশনে প্রস্তাবিত প্রার্থীরাই শুধু মনোনয়ন ফরম কিনতে পারবেন। যথাযথ স্বাস্থ্য সুরক্ষাবিধি মেনে এবং কোনো ধরনের লোকসমাগম ছাড়া প্রার্থী নিজে অথবা প্রার্থীর একজন যোগ্য প্রতিনিধির মাধ্যমে আবেদনপত্র সংগ্রহ ও জমা দিতে পারবেন। আবেদনপত্র সংগ্রহের সময় প্রার্থীকে অবশ্যই প্রার্থীর জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি সঙ্গে আনতে হবে। গত ১৪ ডিসেম্বর নির্বাচন কমিশন থেকে তৃতীয় ধাপে ৬৪টি পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। তবে যেন কোন বিশৃংখলা না হয় তার সকল নির্দেশনা প্রদান করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
তথ্য সংগ্রহ: সমকাল থেকে

Leave a Reply

Your email address will not be published.