Saturday, September 25বাংলারবার্তা২১-banglarbarta21
Shadow

চট্টগ্রামের হালিশহর মার্ট এর বার্ষিক বনভোজন অনুষ্ঠিত

বার্তা প্রতিনিধি: বিশ্ব বাজারের সাথে তাল মিলিয়ে চলা মানুষের চাহিদা সম্মত আধুনিক সব রকমের নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের সমাহারে সজ্জিত হালিশহর মার্ট। হালিশহর এক্সেস রোডে তাসপিয়া ক্লাবের পাশ ঘেষে প্রায় ৩ বছর আগে শুরু হওয়া এই সোপে পাওয়া যায় আধুনিক সব রকমের জিনিস। মানুষের ভরন পোষনের মৌলিক চাহিদা মেটানোর সব রকমের জিনিস পাওয়া যায় এই সপিংএ। অফিস কর্মকর্তা সহ দুই সিপটে প্রায় ৯০ জন লোকের মত কাজ করেন এই সপিংএ। প্রতিটি সেক্টর ভাগ করা আছে আর প্রতি সেক্টরে রয়েছে সেবাদান করার মত অত্যাধুনিক পুরুষ ও মহিলা। রয়েছে সকলের জন্য একই রকম পোষাক। আধুনিক এই হালিশহর মাট সপিং যেন ফুলে সজ্জিত। সারা বছর কাজ করে বছরের শেষ প্রান্তে মনের প্রশান্তি মেটানোর জন্য প্রতি বছরই হালিশহর মার্ট কর্তৃপক্ষ বার্ষিক বনভোজনের আয়োজন করে।

তারই ধারাবাহিকতায় এই বছর ৩টি প্রতিষ্ঠান মিলে চট্টগ্রামের অত্যাধুনিক বিনোদন কেন্দ্র ফয়জলেকের সী-ওয়াল্ডে প্রায় ৬০০ জনের এক বর্ণাঢ্য আয়োজন করে হালিশহর মার্ট কর্তৃপক্ষ। প্রতিজন কর্মকর্তা কর্মচারী শুধু একা নয় এই আয়োজনে রয়েছেন তাদের পরিবার ,মা বাবা সহ পুরো পরিবার। এখানে আধুনিক মনোবিকাশের সবছেয়ে মহান পরিচয় দেন হালিশহর মার্ট কর্তৃপক্ষ। কর্তৃপক্ষ চান যেন কর্মকর্তা কর্মচারীদের সাথে তাদের পরিবারও এই বণ্যাঢ্য আয়োজনে অংশগ্রহন করতে পারে। হালিশহর মার্ট কর্তৃক আয়োজিত ২০২০ সালের বার্ষিক বনভোজন আয়োজনটি করা হয় ২৬শে ডিসেম্বর। সকাল ৮টায় শুরু হওয়ার সাথে সাথে নান্তার আয়োজন। পরে পরিবহনের মাধ্যমে সুশৃংখলভাবে সকাল ৯.৩০ মিনিটে ফয়জলেকে প্রবেশ করেন।

এরপর স্প্রিড বোটের মাধ্যমে দুই পাহাড়ের মাঝ দিয়ে সকলের যাত্রা হয় সী-ওয়াল্ডে। সকাল ১১ থেকে প্রায় ২টা পর্যন্ত সকলের জন্য উন্মক্ত থাকে সব ধরনের বিনোদন। এরপর শুরু হয় ভোজনের পালা। হরেক রকম আয়োজনে দুপুরের ভোজন শেষ হয়। তারপর চলে সংক্ষিপ্ত আলোচোনা। হালিশহর মার্ট এর চেয়ারম্যান বলেন আপনাদের সন্তান বা ছেলে মেয়ে আমাদের সাথে কাজ করে। তারা আমাদের পরিবারের একজন। তাই প্রতি বছর আমরা তাদের কাজের পাশাপাশি একটি বনভোজন আয়োজন করি যেখানে আমরা তাদের সকলের পরিবারকেও আমন্ত্রন জানাই। যাতে তারা স্ব-পরিবারে সারাদিন বিনোদন করতে পারে। আমরা এই ধারাবাহিকতা সব সময় ধরে রাখতে চাই। এমডি তার বক্তব্যে বলেন আমরা সবসময় ভাল করার চেষ্টা করি। যদি এর মাঝেও কোন ভূল থাকে তাহলে আমাদের ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন।

সব আয়োজনে ছিলেন চেয়াম্যান, এমডি ও পরিচালকগন। এতো সুন্দর একটি আয়োজন চোখে দেখার মত। পরিশেষে হালিশহ মার্ট এর লোগোযুক্ত সিরামিকের প্লেট সকলকে একটি করে উপহার দিয়ে দুপু ৩.৩০ মিনিটে বনভোজনের সমাপ্তি ঘোষনা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.